মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

ঘটনাপুঞ্জ

দেশের সার্বিক উন্নয়ণের লক্ষ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহের অবকাঠামো সৃষ্টির মাধ্যমে কৃষি উন্নয়ন, গ্রামীণ শিল্পায়ন, বেকার সমস্যার সমাধান ও উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে “লাভ নয়, লোকসান নয়” এবং “গ্রাহকগণই প্রকৃত মালিক” ধারণার ভিত্তিতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি হিসেবে সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ প্রথম আত্মপ্রকাশ করে। দেশীয় সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার এবং প্রাপ্ত বৈদেশিক সহায়তাকে পরিপূর্ণভাবে কাজে লাগিয়ে পল্লী বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম গ্রামীণ আর্থ-সামাজিক উন্নয়ণের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। ১৯৭৭ সালের ৩১ অক্টোবর পল্লী বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এক অধ্যাদেশের মাধ্যমে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড গঠিত হয় এবং পর্যায়ক্রমে দেশের সর্বত্র বিদ্যুতায়নের উদ্দেশ্যে কার্যক্রম শুরু করে। এ কার্যক্রমের আওতায় প্রাথমিকভাবে সারা দেশে ১৩টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি গঠন করা হয় এবং তন্মধ্যে সিরাজগঞ্জ জেলার তথা যমুনা ও করতোয়া নদীর অববাহিকার প্রত্যন্ত অঞ্চলের গ্রামীন জনপদের সকল শ্রেনীর জনগোষ্ঠীকে বিদ্যুতায়নের মাধ্যমে তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে ১৯৭৯ সালের ৩১ আগষ্ট গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ও ইউ এস এইড এর যৌথ অর্থায়নে সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি গঠিত ও নিবন্ধিত হয় ।  আনুষ্ঠানিক বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন হয় ১৯৮১ সালের ১৪ এপ্রিল। উল্লেখ্য, উল্লাপাড়া উপজেলার বালসাবাড়ী ও খালিয়াপাড়া গ্রামের ৩০ জন গ্রাহককে প্রথম বিদ্যুৎ সংযোগের  মাধ্যমে এই বিশাল জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের বীজ রোপিত হয়।  শুরুতে পাবনা জেলার অর্ন্তগত হওয়ায় এর নাম ছিল পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩।  পরবর্তীতে ১৯৮৫ সালে সিরাজগঞ্জ জেলা ঘোষিত হওয়ায় এর নাম করন করা হয় “সিরাজগঞ্জ পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি ” মাত্র ৩টি উপজেলা নিয়ে কার্যক্রম শুরু হলেও পরবর্তীতে ৯টি উপজেলার প্রান্তিক পর্যায়ে বিদ্যুতায়নের মাধ্যমে এর সুফল ঘরে ঘরে পৌছে দিতে সক্ষম হয়। ০১ লা জুলাই ২০১৫ সালে সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি বিভক্ত হয়ে সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ ও সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ গঠিত হয়।   এতদ অঞ্চলের কৃষি, শিল্প ও বাণিজ্যিক ক্ষেত্র প্রসারে ও জীবন যাত্রার মান উন্নয়ণ ও গণ সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ ইতিবাচক ভূমিকা পালন করে চলছে। সমিতিকে আর্থিকভাবে স্বণির্ভর করার লক্ষ্যে নিয়মতান্ত্রিকভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ গ্রহণ করা, সংযোগপ্রাপ্ত সকল সম্মানিত গ্রাহকগণের নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা, ট্রান্সফরমার চুরি রোধে সহায়তা করা এবং সমিতির দৈনন্দিন কাজে সহযোগীতা করাসহ সম্ভাব্য সকল ক্ষেত্রে বিদ্যুতের যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে সমিতির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধিতে সংশ্লিষ্ট সকলের ভূমিকা রাখা জরুরী।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter